You are currently viewing আইটি কর্মকক্ষেত্রের নিয়মনীতি মোতাবেক কাজের ক্ষেত্রে নিরাপদ থাকা

আইটি কর্মকক্ষেত্রের নিয়মনীতি মোতাবেক কাজের ক্ষেত্রে নিরাপদ থাকা

মাত্রাতিরিক্ত কম্পিউটার ব্যবহারে অনেক রকম শারীরিক সমস্যা দেখা দিতে পারে। চিকিৎসকরা বলেছেন, সাধারণ ৪ঘন্টা বা তার বেশি কম্পিউটারে সময় কাটালে শারীরিক সমস্যা দেখা দিতে পারে। কম্পিউটার ব্যবহারের কুফল কী কী? প্রতিকারের উপায়ই বা কী? নিচে প্রশ্নোত্তর মাধ্যমে জানানো হবে।

সমস্যা-১ঃ পেশির সমস্যা। যাঁরা বেশি কম্পিউটার ব্যবহার করে তারা প্রায়ই এ সমস্যা ভোগে। বসার অবস্থান যদি ঠিক না হয় তা হলে পিঠের ব্যাথা, কোমরে ব্যথার মতো সমস্যা দেখা দিতে পারে।

প্রতিকারঃ চেয়ার এবং কম্পিউটার টেবিল এমনভাবে রাখতে হবে, যাতে মনিটরের স্কিন চোখের সামনে বা একটু নিচুতে থাকে। মেরুদণ্ড সোজা করতে বসতে হবে। পা দু’টোকেও সোজা ছড়িয়ে রাখতে হবে, যাতে মনিটরের স্কিন চোখের সামনে বা একটু নিচুতে থাকে। মেরুদণ্ড সোজা করে বসতে হবে। পা দু’টোকেও সোজা ছড়িয়ে রাখতে হবে। ফলে পেশিতে টান ধরবে না। কাজের ফাঁকে ফাঁকে উঠে হাঁটতে হবে।

সমস্যা-২ঃ ঘাড়, আঙ্গুল এবং কাঁধে ব্যথা। অনেক্ষণ মাউস ধরে কাজ করলে আঙ্গুল রক্ষসঞ্চালন কম হয়। ফলে আঙুল ব্যথা অনুভব হয়। কাঁধের পেশিতেও ব্যথা হতে পারে। কব্জি ও আঙুলে কর্পাল টানেল সিনড্রোম দেখা দেওয়ার প্রবণতা বাড়ে।

প্রতিকার: মাউসটাকে কী-বোর্ডের পাশে এমনভাবে রাখতে হবে, যাতে পুরো হাতটা নড়াচড়া করতে পারে। শুধু কব্জি নাড়ালে হবে না। টাইপ করার সময় কব্জিকে একটি নির্দিষ্ট জায়গায় না রেখে কাজ করাই ভালো। যখন টাইপ করবেন না তখন হাতটাকে স্ট্রেচ করতে হবে।

Leave a Reply